ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

নওগাঁ’র মান্দায় বাণিজ্যিকভাবে গাছ আলু চাষ হচ্ছে

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: নভেম্বর ২৫, ২০২৩, ০৩:১৫ দুপুর  

ছবি সংগৃহীত

জেলার মান্দা উপজেলায় বাণিজ্যিকভাবে গাছ আলু চাষ করে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার স্বপ্ন পূরণ করতে চলেছেন কৃষকরা। স্থানীয় কৃষি বিভাগের সহযোগিতায় কৃষকরা বিশেষ প্রদর্শনীর আওতায় তাদের জমিতে গাছ আলু চাষ করেছেন। প্রতি বিঘা জমি থেকে ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা লভের প্রত্যাশা করছেন কৃষকরা।

এক সময় এসব গাছ আলু বিভিন্ন বনে জঙ্গলে পরিত্যক্ত গাছে এবং বাঁশঝাড়ে লতানো আকারে জন্মাতো। খাদ্য হিসেবে মানুষের কাছে তেমন পরিচিতি ছিলনা। তবে কিছু মানুষ এগুলো আগুনে পুড়িয়ে খেতেন। বর্তমানে সেই জঙ্গলের গাছ আলু কৃষি বিভাগের কৃন্দল কর্মসূচির আওতায় বাণিজ্যিকভাবে চাষ করতে কৃষকদের উৎসাহিত করছেন। কৃষি বিভাগের পরামর্শ অনুযায়ী মান্দা উপজেলায় ১০টি প্রদর্শনী ক্ষেতে গাছ আলু চাষ করেছেন কৃষকরা। সম্পূর্ন নতুন জাতের একটি ফসল চাষের এ আগ্রহ স্থানীয় সাংবাদিকদের দৃষ্টি কেড়েছে।

প্রতিবিঘা জমিতে বীজ আলু, সার, পরিচর্যা ইত্যাদি বাবদ মোট খরচ হয় প্রায় ১৫ হাজার টাকা। এ এক বিঘা জমি থেকে গাছের উপরে কমপক্ষে ৪৫ মণ এবং মাটির নিচে আরও ১০ মণ আলু উৎপাদিত হবে। বর্তমান বাজার অনুযায়ী প্রতি মণ পাইকারী  ১৬০০ টাকা হিসেবে মোট আয় হবে ৭০ থেকে ৭২ হাজার টাকা। চাষের থরচ বাদ দিয়ে একজন কৃষক প্রতি বিঘায় নীট লাভ করবেন ৫৫ থেকে ৬০ হাজার টাকা।এসব প্রদর্শনী কক্ষে ইতিমধ্যেই এলাকার কৃষকদের মধ্যে ব্যপক সাড়া ফেলেছে। অনেক কৃষক তাঁদের জমিত চাষ করবেন বলে কৃষি বিভাগের সাথে যোগাযোগ করতে শুরু করেছেন।

মান্দা উপজেলা কৃষি অফিসার মোছাঃ শায়লা শারমিন বলেছেন গাছ আলু মানুষের খাদ্য হিসেবে অনেক গুনগত মানের এবং পুষ্টিসম্পন্ন। গাছ আলু চাষ করতে তেমন কোন ঝক্কিঝামেলা নেই। সার কীটনাশক কিংবা পরিচর্যাও তেমন করতে হয়না। খুব অল্প খরচ এবং অল্প পরিচর্যায় গাছ আলু চাষ করে অধিক লাভ করা সম্ভব। যার ফলে কৃষি বিভাগের পরামর্শ অনুযায়ী এ উপজেলায় অনেক কৃষক গাছ আলু চাষে এগিয়ে এসেছেন। আরও কৃষকরা গাছ আলু চাষে আগ্রহ প্রকাশ করলে সার্বিক সহযোগিতা ও পরামর্শ প্রদান করবে কৃষি বিভাগ বলে তিনি উল্লেখ করেছেন।