ছাত্রলীগের মারামারিতে ঢাবিতে চ্যারিটি শো পণ্ড

Date: 2021-11-06
news-banner

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাপচিত্র বিভাগের ২০০৯-১০ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র অয়ন ভট্টাচার্য। জটিল হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত এই শিক্ষার্থীর চিকিৎসার খরচ সংগ্রহ করতে দুই দিনব্যাপী চ্যারিটি শোয়ের আয়োজন করেছিলেন চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থীরা। ছাত্রলীগের দুটি পক্ষের মারামারিতে ‘কনসার্ট ফর অয়ন’ নামের ওই শো পণ্ড হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার বেলা তিনটা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির সামনে তৈরি মঞ্চে গান পরিবেশন করে জলের গান, অ্যাভয়েড রাফা, বাংলা ফাইভসহ বিভিন্ন ব্যান্ড। আজ শনিবারও বেলা তিনটা থেকে কনসার্ট হওয়ার কথা ছিল। এতে শিরোনামহীনসহ বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় ব্যান্ডের গান পরিবেশনের কথা ছিল।

অয়ন ভট্টাচার্যের চিকিৎসার জন্য ৩৫ লাখ টাকা প্রয়োজন। গতকাল কনসার্ট ফর অয়ন চলাকালে কাগজের বাক্সে করে শ্রোতা-দর্শনার্থীদের কাছ থেকে ঘুরে ঘুরে অর্থ সংগ্রহ করেন চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থীরা। পাশাপাশি ‘অয়নের জন্য আমরা’ শিরোনামে বসানো হয়েছিল একটি আর্ট ক্যাম্প। সেখানে হাতে আঁকা ছবি বিক্রি করে পাওয়া অর্থও অয়নের চিকিৎসায় ব্যয় করা হবে।
ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, ইভ টিজিং করাকে কেন্দ্র করে গতকাল কনসার্টের শেষ দিকে টিএসসিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক মুসলিম হল ও ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ হল শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের একটি অংশের সঙ্গে বিজয় একাত্তর হল, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল, মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল ও কবি জসীমউদ্‌দীন হল শাখার নেতা-কর্মীদের একটি অংশের সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে ফজলুল হক হলের ছাত্র মো. মিঠু আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

এ ঘটনার পর কনসার্ট ফর অয়ন আয়োজক কমিটির অন্যতম সদস্য ও চারুকলা অনুষদ শাখা ছাত্রলীগের সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক আবদুল্লাহ আল কাফি ফেসবুকে লেখেন, ‘অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে অজ্ঞাতনামাদের সংঘর্ষের কারণে শনিবারের কনসার্ট ফর অয়ন শীর্ষক আয়োজন বাতিল করা হলো। আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত এবং একই সঙ্গে আমাদের পাশে থেকে সহযোগিতা করার জন্য সবার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। শনিবারের লাইনআপের সব ব্যান্ড দলের কাছে হাতজোড় করে অনুরোধ করছি, আমাদের ক্ষমা করবেন।’ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির কঠোর নির্দেশনার কারণে কনসার্ট বাতিল করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী প্রথম আলোকে বলেন, ‘প্রথমত, এই কনসার্টের কোনো অনুমতি ছিল না। দ্বিতীয়ত, এ ধরনের আয়োজনের উদ্দেশ্য থাকে হৃদ্যতা বাড়ানো, হৃদয় ভাঙা নয়। যে লক্ষ্য নিয়ে কনসার্টের আয়োজন করা হয়েছিল, সেদিকে না গিয়ে বিষয়টি মারামারি-দাঙ্গা-ফ্যাসাদে চলে গেছে। বিশ্ববিদ্যালয় বারবার সবার কাছে সহযোগিতা চাইছে। কোনো পক্ষ যে আবার মারামারিতে জড়িয়ে পড়বে না, তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। মানবিক কারণে কনসার্ট করা হয়েছে, এবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতি দায়িত্বের জায়গা থেকে তাদের আজকে কনসার্টটি না করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।’

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হোসাইন আহমেদ সোহান বলেন, মারামারির ঘটনার সঙ্গে যারাই জড়িত থাকুক, এ ধরনের ঘটনা কোনো অবস্থাতেই কাম্য নয়।

Leave Your Comments